স্টুলিশ অ্যাপ কতটা নিরাপদ জানেন কী?

ফেসবুক টাইমলাইনে উড়েছ সাদা পায়রা। দেখেছন নিশ্চই? প্রেম, ভালাবাসা কিংবা রাগ,অভিমান সোজাসাপটা পৌছে যাচ্ছে সবার কাছে। গত কদিন যাবৎ স্টুলিশ অ্যাপ (Stulish) নামে একটি থার্ডপার্টি অ্যাপ থেকে আপলোডকৃত সাদা পায়রা সম্বলিত ছবি সবার নিউজফিডে ঘুড়ে বেড়াচ্ছে। হুট করে ট্রেডিং লিষ্টে চলে আসা এই অ্যাপ আসলে কতটা নিরাপদ, তা নিয়েই আমাদের এই আর্টিকেল।

স্টুলিশ এপ

 

স্টুলিশ (Sutlish App) হচ্ছে একটি এনোনিমাস মেসেজিং এপ। HLN Entertainment নামক একটি সংস্থা এই এপটি নির্মাণ করেছে। এই সংস্থাটি মূলত কাজ করে থাকে আমেরিকা, কানাডা, ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে। তবে এবার এর আমদানি হয়েছে ইউরোপ থেকেই। স্টুলিশ এপটিতে নাম, পরিচয় গোপন রেখে পরিচিত কাউকে যেকোনো ম্যাসেজ বা মন্তব্য লিখে পাঠানো যায়। তবে যাকে প্রশ্ন করা হয়, সে এপের মাধ্যমে প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেনা। ঐ প্রশ্নটির উত্তর ক্যাপশনে লিখে ফেসবুকে শেয়ার করা হয়। সেই সাথে যিনি প্রশ্ন করেছেন তার নামও গোপন রাখা হয়।

স্টুলিশ এপের ব্যাবহার

 

এই এপটি ব্যাবহার করার জন্য গুগল প্লে-স্টোর বা আইফোনের এপস্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিজস্ব একাউন্ট খুলে নিতে হয়।পরিচিত কারও একাউন্ট খুঁজে বের করে তাকে প্রশ্ন করার অপশন রয়েছে এখানে।

স্টুলিশ এপ কতটা নিরাপদ?

 

ভারতের সাইবার আইন বিশেষজ্ঞ বিভাস চ্যাটার্জি জানিয়েছেন, দেশটির আইটি এক্টের সেকশন ২ সাবসেকশন W অনুযায়ী স্টুলিশ এপটি ইন্টার মিডিয়ারি। এই এপগুলো এনক্রিপটেড এনভায়রনমেন্ট ব্যাবহার করে। এনক্রিপশনের জিন্য প্রাইভেসিটা খুবই উপভোগ্য। কিন্তু ক্রাইম হলে পুলিশের কাছে খুবই চ্যালেঞ্জিং। জঙ্গিবাদের কাজেই মূলত এধরনের এপগুলো ব্যাবহৃত হয়।
সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে স্টুলিশ একটি থার্ডপার্টি এপ। ব্যাবহারের জন্য এটাকে ফেসবুকের সাথে কানেক্ট বা সিনক্রোনাইজ করা হয়। অথচ ফেসবুক ব্যাবহারের নীতিমালায় স্পষ্ট লেখা আছে, কোনো প্রকারের থার্ডপার্টি এপ ফেসবুকের সাথে সিনক্রোনাইজড করার ফলে যদি ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি হয়, তার জন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

অর্থাৎ স্টুলিশ ব্যাবহার করার ফলে আপনার ফেসবুক আইডি থেকে যেসব তথ্য নেয়া হচ্ছে তা চুরি হলে, তার কোনো দায়ভার ফেসবুক নিবেনা।এমনকি এটা ব্যাবহারের কারণে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হলেও সেই দায়ভার ফেসবুকের নয়!

স্টুলিশ ব্যবহারকারী অনেকের আইডি থেকেই বিভিন্ন গ্রুপে অটোমেটিক মেম্বার এড হওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে ইতিমধ্যে জানা গেছে।এরপর যদি আপনার সাধের ফেসবুক আইডিটি হারাতে চান, তাহলে সে সিদ্ধান্ত আপনারই হাতে।

শেষকথা

 

স্টুলিশ এপের প্রাইভেসি পলিসিতে লেখা আছে,তারা তাদের ইউজারের প্রাইভেস দিবে। কোনো তথ্য তারা বিক্রি করবেনা। একইসাথে এটাও লেখা আছে, তারা যেকোনো সময় তাদের এই পলিসি পরিবর্তন করার অধিকার রাখে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.